৯ বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা, আসামির যাবজ্জীবন

শেয়ার করুন

চাটগাঁ নিউজ ডেস্ক : চট্টগ্রামে নয় বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় একজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই রায়ে আদালত তাকে তিন লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৪ মে) চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক ফেরদৌস আরা এই রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামি মো. ফজলুল শেখ ফরিদপুর জেলার সালতা থানার যৌথনন্দী এলাকার মৃত মো. আফসার শেখের ছেলে। তিনি থাকতেন চট্টগ্রাম পতেঙ্গা থানার কাঠগড় এলাকায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট খন্দকার আরিফ বলেন, আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকে এসমস্ত মামলাগুলো দ্রুত শেষ করার। এজন্য মামলা সাক্ষ্য দ্রুত শেষ করে থাকি। এই মামলায় আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়াই যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ৩ লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয় আদালত। এ রায়ে আমরা রাষ্ট্রপক্ষ সন্তুষ্ট।

মামলার এজহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১৮ আগস্ট পতেঙ্গা থানার কাঠগড় ওসিএল গলি এলাকার শহিদুলের বিল্ডিংয়ে ঘটনা এটি। ভিকটিমের বয়স তখন ৯ বছর। সে দ্বিতীয় শ্রেণীতে লেখাপড়া করতেন। বাবা ড্রাইভার হিসাবে চাকরি করতেন প্রাণ কোম্পানির গাড়িতে। তার মা কেইপিজেডস্থ ক্যানপার্ক-২ চাকরি করতেন। ঘটনার দিন সকালে ভিকটিম ও তার ছোট বোনকে একা বাড়িতে রেখে যার যার কর্মস্থলে চলে যান ভিকটিমের মা-বাবা। সেই সুবাধে ছোট বোনকে চিপসের জন্য দোকানে পাঠিয়ে ভিকটিমকে বিস্কুট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে শহিদুলের নির্মাণাধীন ভবনে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে মো. ফজলুল শেখ।

এ সময় ভিকটিমের চিৎকারে আশপাশের লোকজন জড়ো হয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে ঘটনাটি উল্লেখ করে মো. ফজলুল শেখ নামে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে পতেঙ্গা মডেল থানায় ধর্ষণ চেষ্টা মামলা দায়ের করেন ভিকটিমের মা।

২০১৭ সালের ৫ মার্চ পুলিশের দেওয়ার অভিযোগের উপর ভিত্তি করে অভিযোগ গঠন করে আদালত। মোট ৫ সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে দীর্ঘ ৮ বছর পর আজ অভিযুক্ত মো. ফজলুল শেখ বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেন আদালত।

চাটগাঁ নিউজ/এসএ

Scroll to Top