‘মৈত্রীপ্রদীপ আনন্দমিত্র মহাথের ছিলেন কীর্তিমান ভিক্ষু’

শেয়ার করুন

রাউজান প্রতিনিধি : ‘ভদন্ত আনন্দমিত্র মহাথের ছিলেন কীর্তিমান ভিক্ষু। তিনি আজীবন মানবতার কল্যাণে কাজ করে গেছেন। তিনি ছিলেন সমাজ সদ্ধর্মের নিবেদিতপ্রাণ, সর্বজনপূজ্য সংঘমনীষা ও আবাল্য ব্রহ্মচারী।’

সোমবার (৮ জুলাই) রাউজান উপজেলার পূর্বগুজরা ইউনিয়নের মৈত্রী বিহার প্রাঙ্গণে বৃহত্তর হোয়ারাপাড়া গ্রামবাসী এবং পূর্বগুজরা মৈত্রী বিহারের দায়ক-দায়িকাদের ব্যবস্থাপনায় মৈত্রীপ্রদীপ ভদন্ত আনন্দমিত্র মহাথেরের প্রয়াণোত্তর সাপ্তাহিক ক্রিয়া উপলক্ষে অষ্টপরিষ্কারসহ মহাসংঘদান, পেটিকাবদ্ধ অনুষ্ঠান ও সদ্ধর্ম আলোচনা সভায় বক্তারা এ কথা বলেন।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার উপসংঘনায়ক সদ্ধর্মরশ্মি, অগ্গসাসনধ্বজ রতনশ্রী মহাথের।আশীর্বাদক ছিলেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার ২৯তম সংঘনায়ক প্রিয়শীলী, অগগমহাপণ্ডিত অধ্যাপক বনশ্রী মহাথের।

বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার সভাপতি সদ্ধর্মজ্যোতি, শিক্ষাবিদ সুনন্দ মহাথেরের সভাপতিত্বে ভদন্ত জ্ঞানেন্দ্রিয় ভিক্ষু ও ভদন্ত করুনানন্দ ভিক্ষু’র সঞ্চালনায় সভায় প্রধান জ্ঞাতি ছিলেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার ঊর্ধ্বতন সহসভাপতি সদ্ধর্মরত্ন জ্ঞানানন্দ মহাথের।

মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে সভার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সভাপতি ও ঢাকা ধর্মরাজিক মাহাবিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত বুদ্ধপ্রিয় মহাথের, প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার মহাসচিব প্রজ্ঞাবারিধি অধ্যাপক সুমেধানন্দ মহাথের।

বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগঠনটির সহ-উপসংঘনায়ক শাসনস্তম্ভ জীবনানন্দ মহাথের, অধ্যাপক বিপুলানন্দ মহাথের, রাজগুরু ধর্মসেনাপতি অভয়ানন্দ মহাথের, সদ্ধর্মভান্ডারিক ড. প্রিয়দর্শী মহাথের, ভদন্ত সংঘানন্দ মহাথের, ভদন্ত জ্ঞানবংশ মহাথের, কর্মবীর করুণাশ্রী থের, সংঘসহৃত ধর্মপ্রিয় মহাথের, সদ্ধর্মসারথী সুমনবংশ মহাথের, মৈত্রীবারিধি পরমানন্দ মহাথের।

শাসনরত্ন সুমিত্তানন্দ থের, সংঘনিধি সুমঙ্গল থের, ভদন্ত সুমনানন্দ থের ও ভদন্ত সংঘমিত্র থের সার্বিক পরিচালনায় সভায় বিশেষ আলোচক ছিলেন প্রফেসর ড. সুব্রত বরণ বড়ুয়া, পরিতোষ বড়ুয়া, অঞ্চল কুমার তালুকদার, বিনয় ভূষণ বড়ুয়া, কাজল কান্তি বড়ুয়া ও রোটারিয়ান অমরেশ বড়ুয়া।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সমীরণ বিকাশ বড়ুয়া, ডা. স্বপন চন্দ্র বড়ুয়া, স্বপন কান্তি বড়ুয়া, লায়ন কেমি বড়ুয়া, শিক্ষিকা নেভি বড়ুয়া। অতিথি ছিলেন অধ্যাপক বিপুলানন্দ মহাথের, রাজগুরু ধর্মসেনাপতি অভয়ানন্দ মহাথের, সদ্ধর্মভান্ডারিক ড. প্রিয়দর্শী মহাথের, ভদন্ত সংঘানন্দ মহাথের, ভদন্ত জ্ঞানবংশ মহাথের, কর্মবীর করুণাশ্রী থের, সংঘসহৃত ধর্মপ্রিয় মহাথের, সদ্ধর্মসারথী সুমনবংশ মহাথের, মৈত্রীবারিধি পরমানন্দ মহাথের।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঝুলেন বড়ুয়া, পিন্টু বড়ুয়া, শিক্ষক তিলক বড়ুয়া, দূর্লভ বড়ুয়া, অসীম বড়ুয়া প্রমুখ। এছাড়াও চট্টগ্রামসহ আশেপাশের জেলা হতে পণ্ডিত, প্রাজ্ঞ, মহান ভিক্ষুসংঘ, বিদগ্ধ সুধীবৃন্দ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ পূর্ণার্থী ও দায়ক-দায়িকাবৃন্দের মহাসমাগম ঘটে।

সভা শেষে বেলা ২টায় ভদন্ত আনন্দমিত্র মহাথেরকে পেটিকাবদ্ধ করা হয়।

উল্লেখ্য, মৈত্রীপ্রদীপ ভদন্ত আনন্দমিত্র মহাথের ছিলেন থেরবাদী বৌদ্ধদের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার সহ-উপসংঘনায়ক, বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু সম্মিলনী প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, পূর্বগুজরা সার্বজনীন মৈত্রী বিহারের বিহারাধ্যক্ষ, বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভা-যুব কর্তৃক স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত ও সংঘনায়ক চন্দ্রজ্যোতি শান্তি স্বর্ণপদকে ভূষিত, রাজগুরু বিজয়ানন্দ মহাথের’র প্রথম শিষ্য।

চাটগাঁ নিউজ/এসএ

Scroll to Top