বিএনপি-জামায়াতকে ঘরবন্দী করে রাখার হুঁশিয়ারি যুবলীগের

শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত যদি আবার ২০১৩-১৪ সালের মতো তাণ্ডব চালানোর চেষ্টা করে, তাহলে যুবলীগ তাদের ঘর থেকে বাইরে বের হওয়ার পথ বন্ধ করে দেবে।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) রাজধানীর পুরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্কে আয়োজিত শান্তি সমাবেশে এই কথা বলেন তিনি।

দেশব্যাপী বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্য ও তাণ্ডবের প্রতিবাদে এই সমাবেশের আয়োজন করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ।

নিখিল বলেন, বিএনপি-জামায়াত যদি সাধারণ জনগণের ওপর হামলা করে, মানুষ হত্যা করে, তাহলে তাদের সেই হাত ভেঙে চুরমার করে দেওয়া হবে। শুধু ঢাকা শহর নয়, সারাদেশেই যুবলীগ এর জবাব দেবে।

তিনি বলেন, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের কারণে সারাবিশ্ব বিপদগ্রস্ত। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়টি পৃথিবীর মানুষ বোঝে, কিন্তু বিএনপি-জামায়াত বোঝে না। তারা এই ইস্যু সামনে এনে বর্তমান সরকারের পতন চায়। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পতন চেয়ে তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায়।

তিনি আরও বলেন, ২০১৪-১৫ সালেও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি তুলে তারা দেশে হরতাল-অবরোধ ডাকে। সে সময় বিএনপি-জামায়াত দেশের ১৬৫ জন মানুষকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করে। বর্তমানে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের মানুষ ভালো আছে।

যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি-জামায়াত দেশের শত্রু। তারা স্বাধীনতার শত্রু। একাত্তরে তারা এদেশের স্বাধীনতা চায়নি। জিয়াউর রহমান সেই পরাজিত শক্তিকে, স্বাধীনতার শত্রু জামায়াতকে রাজনৈতিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। এরা যখনই আবার ক্ষমতায় আসবে, তখনই বাংলাদেশের মানুষ জঙ্গি হামলার শিকার হবে, বিপথগামী হবে। এদের ক্ষমতায় আসতে দেওয়া যাবে না।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইন উদ্দিন রানা। সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম রেজাউল করিম রেজা। আরও বক্তব্য রাখেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সহ-সভাপতি সোহরাব হোসেন স্বপন, আনোয়ার ইকবাল সান্টু, নাজমুল হোসেন টুটুল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাফর আহমেদ রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বকুল, গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু দপ্তর সম্পাদক এমদাদুল হক এমদাদ, অর্থ সম্পাদক- ফিরোজ উদ্দিন আহমেদ সায়মনসহ আরও অনেকে।

Scroll to Top