প্রতারণার বিয়ে, ৪ মাস পর টের পেল তরুণী

শেয়ার করুন

চাটগাঁ নিউজ ডেস্ক: প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে এক নারীর সঙ্গে চার মাসের সংসার করার অভিযোগে মো. শাহীন নামে যুবকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা আবেদন করে ওই ভুক্তভোগী তরুণী।

অভিযুক্ত মো.শাহীন, সীতাকুণ্ড থানার ভটিয়ারি ইউনিয়নের মাদামবিবির হাট এলাকার নাজিম চেয়ারম্যান বাড়ির মিজান নেজামীর ছেলে।

সোমবার (১ এপ্রিল) চট্টগ্রামের সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্টেস্ট্র বেগম মুমিনুন্নিসা খানমের আদালতে এই মামলা হয়।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান খাঁন চাটগাঁ নিউজ কে বলেন, আইনবহির্ভূতভাবে ও প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে এক নারীর সঙ্গে চার মাসের সংসার করার অভিযোগে মো. শাহীন নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা আবেদন করা হয়। আদালত শুনানি শেষে মামলাটি গ্রহণ করে সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, প্রতিবেশীর মাধ্যমে পরিচয়ের পর শাহীন তরুণীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন এবং বিয়ে করার প্রস্তাব দেন। তরুণী রাজি হলে, ২০২৩ সালের ১ অক্টোবর কোতোয়ালী থানার একটি কাজী অফিসে কোন সাক্ষী বা আকদ ছাড়াই কাগজপত্রে স্বাক্ষর করে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয় বলে তরুণীকে জানান শাহীন।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি শাহীন তরুণীর সাথে তুচ্ছ বিষয়ে ঝগড়া শুরু করে ও এলোপাথাড়ি মারধর করে। মারধরের এক পর্যায়ে শাহীন তরুণীর পেটে লাথি মারলে তিনি ব্যথায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এ সময় শাহীন তরুণীর কানের দুল ও নগদ ৩০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যান।

পরে তরুণীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান যে, মারধরের কারণে তরুণীর গর্ভের সন্তান নষ্ট হয়ে গেছে।

চাটগাঁ নিউজ/এমআর

Scroll to Top