দেওয়ানহাটে রেলপথ অবরোধ ট্রেন চলাচল বন্ধ : মহানগর এক্সপ্রেসের যাত্রা বাতিল

শেয়ার করুন

চাটগাঁ নিউজ ডেস্ক : সরকারি চাকরিতে সকল গ্রেডে অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাতিল করে কোটা পদ্ধতি সংস্কার করার এক দফা দাবিতে চট্টগ্রামে সড়ক ও রেলপথ অবরোধ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ও চবি অধিভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থীরা। ফলে চট্টগ্রাম-ঢাকা ও চট্টগ্রাম-সিলেট রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের অবরোধের কারণে মহানগর এক্সপ্রেসের যাত্রা বাতিল হয়েছে।

আজ বুধবার (১০ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে দেওয়ান হাটে রেলপথ অবরোধ করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এতে দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি আটকা পড়ে। এতে ট্রেনটি যাত্রা বাতিল হয় বলে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানা ওসি শহিদুল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীদের অবরোধে কারণে রেল চলাচল বন্ধ রয়েছে। মহানগর এক্সপ্রেস সাড়ে ১২ টা দিকে চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়ার কথা কিন্তু অবরোধে কারণে ট্রেনটি যাত্রা সূচি বাতিল হয়। পরবর্তী সময় এখনো নির্ধারণ করা হয়নি।

এছাড়া ঢাকা ও সিলেট রুটেও ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে তীব্র যানজটের কবলে পড়েছে বন্দর নগরী। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (১২টা ৪১ মিনিট) শিক্ষার্থীরা দেওয়ান হাটের রেলপথে অবস্থান করছেন।

শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন দেওয়ানহাট ওভার ব্রিজ থেকে শিক্ষার্থীরা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে এক দল রেলপথ ও আরেক দল সড়ক পথ অবরোধ করে। ‘সর্বাত্মক বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সন্ধ্যা পর্যন্ত সড়ক ও রেলপথে অবরোধ চলবে।

এ সময় শিক্ষার্থীরা ‘সারা বাংলা খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে’, ‘মেধা না কোটা? মেধা- মেধা’, ‘মেধাবীদের কান্না, আর না, আর না, কোটার বিরুদ্ধে, লড়ায় হবে একসাথে’, একাত্তরের পথ ধরো, বাংলা ব্লকেড সফল করো’, ব্লকেড ব্লকেড, বাংলা ব্লকেড’, ‘দফা এক দাবি এক, কোটা নট কাম ব্যাক’, ‘দালালি না রাজপথ, রাজপথ রাজপথ,’ ‘আঠারোর হাতিয়ার, গর্জে উঠুক আরেকবার”, ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবি, মেধাবীদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার লড়াইয়ে তারা অংশগ্রহণ করেছে। কোটা বৈষম্যের কারণে মেধাবীদের জন্য সকল রাস্তা সংকীর্ণ হয়ে যাচ্ছে। মেধাবী দ্বারা পরিচালিত একটি স্মার্ট বাংলাদেশ দেখতে চাই। দাবি আদায় হলেই অবরোধ বন্ধ হবে।

‘বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন’-এর চবি সমন্বয়ক রাসেল আহমেদ জানান, আমরা কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে চবি ও অধিভুক্ত সকল কলেজের শিক্ষার্থীরা দাবি আদায়ে চট্টগ্রামে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক ও রেলপথ অবরোধের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাদের অবরোধ কার্যক্রম সূর্যাস্ত পর্যন্ত চলবে।

তবে এখন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা তাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে নগরীর টাইগারপাস অবরোধ করেছে।

প্রসঙ্গত, কোটা সংস্কারের দাবিতে টানা আন্দোলন করে যাচ্ছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও চবি অধিভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার দেওয়ান হাট রেলপথ ও সড়ক অবরোধ করেন তারা। শুরুতে চার দফা দাবিতে আন্দোলন করলেও বর্তমানে এক দফা দাবি শিক্ষার্থীদের। দাবিটি হলো- সব গ্রেডে সব প্রকার অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাতিল করে সংবিধানে উল্লিখিত অনগ্রসর গোষ্ঠীর জন্য কোটাকে ন্যূনতম পর্যায়ে এনে সংসদে আইন পাস করে কোটা পদ্ধতিকে সংশোধন করতে হবে।

চাটগাঁ নিউজ/এসআইএস

Scroll to Top