জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তিথি সরকারের ৫ বছর কারাদণ্ড

ধর্ম নিয়ে কটূক্তি
শেয়ার করুন

চাটগাঁ নিউজ ডেস্ক :  ইসলাম ধর্ম ও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে কটূক্তির অভিযোগে  ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থী তিথি সরকারকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

আজ সোমবার ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক এ এম জুলফিকার হায়াত এ রায় ঘোষণা করেন।

সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ সহকারী জুয়েল মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে আবু মুসা রিফাত নামে এক ব্যক্তি মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগ বলা হয়, আসামি তিথি সরকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রাণিবিদ্যা বিভাগের একজন শিক্ষার্থী। তিনি ১৬ অক্টোবর থেকে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে ইচ্ছাকৃতভাবে নিজের ফেসবুক আইডি থেকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করেন। যা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে।

আসামি তিথি সরকার বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের (জ.বি) শাখার দপ্তর সম্পাদক ছিলেন। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার কারণে তাকে সংগঠন থেকে বরখাস্ত করা হয়।

একই অভিযোগে ২০২০ সালের ২৬ অক্টোবর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত আদেশে তিথি সরকারকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়।

মামলার আর্জিতে বলা হয়, তিথি সরকার ২০২০ সালের ১৬ থেকে ২৩ অক্টোবর পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ইসলাম ধর্ম ও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে কটূক্তি করেন। যা ইসলাম ধর্মের মূল্যবোধ ও অনুভূতিতে আঘাত করেছে। ইসলাম ধর্ম অবমাননাকর বিভিন্ন পোস্ট লিখে ও প্রচার করে আসামি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ অনুযায়ী অপরাধ করেছে।

তিথি সরকার কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় গড়ে ওঠা বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের জবি শাখার দফতর সম্পাদক ছিলেন। ধর্ম অবমাননার অভিযোগ ওঠার পর সংগঠন থেকে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। একই অভিযোগে গত ২৬ অক্টোবর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও তিথি সরকারকে বহিষ্কার করা হয়।

চাটগাঁ নিউজ/এসআইএস

Scroll to Top