রাঙামাটিতে বিদ্যুতের খুঁটি থেকে ছিটকে পড়ে কর্মচারীর মৃত্যু

শেয়ার করুন

রাঙামাটি প্রতিনিধি: রাঙামাটি  শহরে প্রয়োজনীয় সেফটি সরঞ্জাম না নিয়ে বিদ্যুতিক খুঁটিতে উঠে মেরামত কাজ করার সময় নিচে পড়ে গুরুত্বর আহত হয়ে আইয়ুব হেলাল নামের একটি কর্মচারির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল আটটার সময় রাঙামাটি শহরের চম্পকনগর এলাকায় এই দূর্ঘটনা ঘটে। মৃত আইয়ুব হেলাল বিদ্যুৎ বিভাগের মেরামত সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলো বলে নিশ্চিত করেছের রাঙামাটি বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ জালাল উদ্দিন।

নিহতের বড় ভাই ইউছুপ বেলাল জানিয়েছেন, ভোর থেকে চম্পকনগর এলাকায় বিদ্যুৎ ছিল না। সকাল ৮টার দিকে বিদ্যুৎ বিতরণ থেকে একটি টিম ট্রান্সফর্মারে কাজ করে বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন স্বাভাবিক করতে আসে। তখন লাইনটি ঠিক করতে হেলাল উদ্দিন বৈদ্যুতিক খুঁটিতে উঠেন। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই সেখান থেকে তিনি পড়ে যান এবং অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। নিহতের স্বজনদের ধারণা, বৈদ্যুতিক শর্টের কারণে খুঁটি থেকে পড়ে গিয়ে হেলালের মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে নিহতের ভাই বেলাল বলেন, তার ভাইয়ের মৃত্যুতে সংশ্লিষ্টদের অবহেলা ছিলো। ছোট ভাইয়ের এই মৃত্যুতে তার দুইটি ছোট ছোট কন্যা সন্তান নিয়ে পরিবারটির আর কোনো অবলম্বন রইলো না। তাই নিহতের পরিবারবে বিদ্যুত বিভাগের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরনের দাবিও জানিয়েছেন তিনি।

রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ডাঃ শওকত আকবর জানিয়েছেন, সকালে জরুরী বিভাগে একজনকে আনা হয়। যার মধ্যে কোনো প্রাণের স্পন্দন না থাকায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সেসময় আমরা জানতে পারি মৃত ব্যক্তি বিদুৎ বিভাগের কর্মচারি। পরবর্তীতে মৃত ব্যক্তিকে ময়না তদন্তের জন্য পুলিশ নিয়ে যায়।

এদিকে চম্পক নগরে কাজ করার সময় বিদ্যুতের সংযোগ লাইন বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ ছিলো জানিয়ে রাঙামাটি বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ জালাল উদ্দিন প্রতিবেদককে বলেন, ট্রান্সফরমারের উপর দাঁড়িয়ে কাজ করার সময় হয়তো সে ব্যালেন্স রাখতে নাপেরে নীচে পড়ে গেছে। তিনি দাবি করেন, মেরামত কাজের সময় বিদ্যুৎ সংযোগ সম্পূর্ণরূপে বন্ধ ছিলো। এই ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মচারিরা জানিয়েছেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে কর্মরত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের লোকজন ঝুঁকিভাতা পেলেও পাহাড়ি অঞ্চলে অত্যন্ত ঝূঁকি নিয়ে বিদ্যুতায়নে কাজ করলেও বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা ঝূঁকি ভাতা পায়না।

উল্লেখ্য, এর আগেও গত কয়েক বছরে একই ধরনের বেশ কয়েকটি দূর্ঘটনা সংগঠিত হয়েছে রাঙামাটির বিদ্যুৎ বিভাগে।

Scroll to Top