বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে আলু

শেয়ার করুন

চাটগাঁ নিউজ ডেস্ক: দেশের বড় পাইকারি সবজি বাজারের অন্যতম বগুড়ার মহাস্থান হাট। এই পাইকারি বাজারে এখন আলুর ব্যাপক আমদানি হচ্ছে। কিন্তু দাম কমছে না, বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে সবধরনের আলু। উত্তরাঞ্চলে সবজির জন্য প্রসিদ্ধ এই হাটে সাদা জাতের আলু ছাড়াও লাল জাতের ক্যারেজ ও পাকরি আলুর আমদানি বাড়ছে প্রতিদিনই।

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে শুরু করে বেলা ১২টা পর্যন্ত আলু পট্টিতে প্রতিমণ নতুন সাদা জাতের আলু দুই হাজার ২০০ থেকে দুই হাজার ৩০০ টাকা মণ, লাল জাতের ক্যারেজ আলু দুই হাজার ৪০০ থেকে আড়াই হাজার টাকা মণ এবং পাকরি আলু দুই হাজার ৮০০ টাকা মণ বিক্রি হয়। আর পুরাতন আলু বিক্রি হয়েছে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা কেজি দরে।

মহাস্থান হাটের আড়তদার আয়নাল হক বলেন, চলতি মৌসুমে আগাম জাতের আলুর দাম শুরু থেকেই বেশি। গত বছরের তুলনায় এবার আলুর দ্বিগুণ দাম বেশি।

গত বছর এই মৌসুমে সাদাজাতের আলু ৯০০ থেকে এক হাজার টাকা মণ বিক্রি হয়েছিল। এবার বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার টাকা মণ।
মহাস্থান হাট ঘুরে দেখা গেছে- আজ বেগুন প্রকারভেদে এক হাজার থেকে এক হাজার ২০০ টাকা মণ, ফুলকপি এক হাজার ৩০০ টাকা মণ, প্রতি পিছ বাধা কপি বিক্রি হয়েছে সর্বোচ্চ ১৭ টাকা, মুলা ২০০ থেকে ৬০০ টাকা মণ, রববটি এক হাজার টাকা মণ, করলা এক হাজার ৪০০ টাকা মণ, কাঁচা মরিচ দুই হাজার থেকে দুই হাজার ২০০ টাকা মণ, শিম এক হাজার ৬০০ টাকা থেকে দুই হাজার টাকা মণ, মুড়িকাটা নতুন পেঁয়াজ তিন হাজার ২০০ থেকে তিন হাজার ৪০০ টাকা মণ, টমেটো দেড় হাজার থেকে এক হাজার ৬০০ টাকা এবং গাজর দুই হাজার থেকে দুই হাজার ২০০ টাকা মণ বিক্রি হয়েছে।
 

মহাস্থান হাটের ব্যবসায়ী কামাল হোসেন  বলেন, বাজারে একমাত্র আলু ছাড়া অন্যান্য সবজির সরবরাহ তুলনামূলক কম হয়েছে।

জমিতে ফলন কম হওয়ার কারণেই বাজারে সরবরাহ কমে গেছে।
Scroll to Top