ডাস্টবিনের পাশে পড়েছিল বৃদ্ধ, ফেসবুকের বদৌলতে খুঁজে পেল পরিবার

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নগরীর মাতারবাড়িতে ডাস্টবিনের পাশে মুমূর্ষু অবস্থায় পড়ে থাকা বৃদ্ধ নির্মল চন্দ্র মুন্সি (৫৫) কে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে সনাতনী স্বেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশন।

২০ মার্চ (বুধবার) সকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে স্বজনদের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়।

এর আগে ১৬ মার্চ নগরীর আগ্রাবাদ মাতারবাড়ি শুভপুর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকার একটি ডাস্টবিনের পাশে পড়ে থাকতে দেখা যায়। তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসেন সংগঠনটির সদস্যরা।

জানা যায়, নির্মল চন্দ্র মুন্সি বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার বাশাইল গ্রামের বাসিন্দা। তিনি আগে থেকেই কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। ২০২২ সালের ২৫ ডিসেম্বর তিনি নিজবাড়ি থেকে নিখোঁজ হন। নিখোঁজ হওয়ার পর তাকে খোঁজার জন্য থানায় নিখোঁজ মামলা করেছিলো তার স্বজনরা।

উদ্ধারকৃত বৃদ্ধের স্ত্রী সবিতা তালুকদার জানান, অজ্ঞাত কারনেই বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যান তার স্বামী। নিখোঁজের পর তাকে হাজার খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে নিখোঁজ মামলা করেন তারা। অবশেষে সোস্যাল মিডিয়ায় খবর পেয়ে তার পরিচয় শনাক্ত করতে সক্ষম হন স্বজনরা।

সনাতনী স্বেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশনের সদস্যরা জানান, মাতারবাড়ি শুভপুর বাসস্ট্যান্ড ডাস্টবিনের পাশে পড়ে থাকতে দেখলে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আনা হয়। তার পরিচয় শনাক্তের জন্য ফেসবুকে বিভিন্ন গ্রুপে পোস্ট করেন তারা। বৃদ্ধের স্বজনরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া পোস্টটি দেখে তাকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয় এবং তাকে নিতে বরিশাল থেকে চট্টগ্রাম আসেন।

বৃদ্ধের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক জানিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আবুল ফারাজ খান চাটগাঁ নিউজকে জানান, নির্মল চন্দ্র মুন্সি এখনো ঝুঁকিমুক্ত নন। তাকে এখানে অজ্ঞান অবস্থায় আনা হয়েছিলো। আনার পরে আমাদের পক্ষ থেকে তাকে সর্বোচ্চ চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়েছে। আমাদের ধারনা তার ব্রেইনে সমস্যা থাকতে পারে। তবে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর আমরা তা নিশ্চিত হতে পারবো।

চাটগাঁ নিউজ/এসবিএন

Scroll to Top