চট্টগ্রামে নগরের ভেজাল প্রসাধনীর বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসনের অভিযান,জরিমানা

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের নগরের বায়েজীদ এলাকায় কল্পনা কমোডিটিস এবং মুরাদপুর মোড়ের এক্সেলেন্ট ওয়ার্ল্ড নামের দুটি প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসন চট্টগ্রাম, বিএসটিআই এবং ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

সোমবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বায়োজীদ এলাকায় ও মুরাদপুরে এই অভিযান পরিচালানা করেন জেলা প্রশাসন।

সকালে বায়েজীদ এলাকার বিসিক শিল্প নগরীতে কল্পনা কমোডিটিস এর ঘি তৈরির ফ্যাক্টরিতে গিয়ে দেখা যায় সেখানে বিএসটিআইয়ের অনুমোদন না নিয়েই ১০ ধরনের ঘি তৈরী হচ্ছে। সাধারণত রাত ১২ টায় কাজ শুরু করে সকাল হবার আগেই কাজ শেষ হয় এখানে। ফলে আশে পাশের মানুষজন এতদিন জানতে পারেন নি এখানে কি ধরনের দ্রব্য তৈরি হয়। বিএসটিআইয়ের এর অনুমোদন না নিয়ে ঘি তৈরী এবং ভুয়া লোগো ব্যবহারের দায়ে ফ্যাক্টরির মালিক জগদীশ ঘোষকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এরপর মুরাদপুর মোড়ের করিমস আইকন ভবনের ৭ম তলায় এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড নামের একটি দোকানে ঢুকে চক্ষু চড়কগাছ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী দলের। সেখানে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর এর অনুমোদনহীন বিভিন্ন সেক্সুয়াল ট্যাবলেট, যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট, গ্যাস্ট্রিক ও ডায়াবেটিস এর ট্যাবলেট এবং বিভিন্ন মিথ্যা এবং চটকদার বিজ্ঞাপন দিয়ে ফুড সাপলিমেন্ট বিক্রি করতে দেখা যায়। সেগুলোর মধ্যে রোগা হওয়া, হার্টের সমস্যা দূর হওয়া, মেয়েদের ঋতুকালীন বিভিন্ন সমস্যা দূর করা, সর্দি, কাশি নিরাময়ের মত বিভিন্ন মিথ্যা বিজ্ঞাপন দেয়া রয়েছে।

এছাড়া ভুয়া বিএসটিআইয়ের লোগো ব্যবহার করে বডি লোশন ও মধু বিক্রি করতে দেখা যায়। এসকল অপরাধে উক্ত প্রতিষ্ঠান এর ম্যানেজার আবু তাহেরকে ঔষধ আইন, ১৯৪০ অনুযায়ী ১ লাখ টাকা, বিএসটিআই আইন, ২০১৮ অনুযায়ী ১ লাখ টাকা এবং মিথ্যা বিজ্ঞাপন দিয়ে ভোক্তাকে প্রতারিত করার জন্য ভোক্তা অধিকার আইনে ১ লাখ টাকা (মোট ৩ লাখ) জরিমানা করা হয় এবং প্রায় ২ লাখ টাকার এসকল নকল, অবৈধ ও ভেজাল পণ্য জব্দ করে বিনষ্ট করা হয়।

জেলা প্রশাসন চট্টগ্রাম এর পক্ষে এ অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব প্রতীক দত্ত।

Scroll to Top