গাজায় আবাসিক ভবনে ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৪০

শেয়ার করুন

চাটগাঁ নিউজ ডেস্ক: গাজার মধ্যাঞ্চলে আবাসিক ভবনে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় কমপক্ষে ৪০ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। গাজার হামাস-নিয়ন্ত্রিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কমপক্ষে ২৯ হাজার ৪১০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে আরও ৬৯ হাজার ৪৬৫ জন।

গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফা শহরের একটি বাড়িতে বিমান হামলার ঘটনায় কমপক্ষে ছয়জন নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে আরও বেশ কয়েকজন। ফিলিস্তিনি বার্তা সংস্থা ওয়াফা নিউজ এজেন্স এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। রাফা শহরের পূর্বে অবস্থিত জালাতা এলাকায় ওই হামলা চালানো হয়েছে। আহতদের আবু ইউসুফ আল-নাজ্জার হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ওয়াফা আরও জানিয়েছে, ইসরায়েলি বাহিনী মধ্য রাফার ইয়াবনা ক্যাম্পের একটি বাড়িতে বোমা হামলা চালিয়েছে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে অধিকৃত পশ্চিম তীরের জেনিন শরণার্থী শিবিরে একটি গাড়িতে ইসরায়েলি বিমান হামলায় আহত ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী গতকাল রাতে একটি গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালিয়েছে। এতে আরও একজন নিহত এবং কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে।

এদিকে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়েছে লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ। এক বিবৃতিতে সামরিক অভিযানের বিষয়ে হিজবুল্লাহ জানিয়েছে, তারা ইসরায়েলের বেশ কয়েকটি ঘাঁটিতে আক্রমণ করেছে। লেবানন-ইসরায়েল সীমান্তের পূর্ব দিকে মেটুলা এবং মানারা শহরে ইসরায়েলি সেনাদের দুটি ভবনে হামলা চালিয়েছে।

হিজবুল্লাহ আরও জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার তাদের দুই যোদ্ধা নিহত হয়েছে। সীমান্তে ইসরায়েলি সৈন্যদের সঙ্গে গোলাগুলি অব্যাহত রয়েছে।

ইরান-সমর্থিত এই গোষ্ঠীটি জানিয়েছে, গাজায় যুদ্ধ শেষ হলেই ইসরায়েলের ওপর তাদের আক্রমণ বন্ধ হবে। তবে ইসরায়েলি নেতারা হিজবুল্লাহকে ইসরায়েলের উত্তর সীমান্ত থেকে দূরে সরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। প্রয়োজনে পূর্ণ মাত্রার যুদ্ধের হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে।

তবে গাজায় ইসরায়েলি বাহিনীর আগ্রাসন বন্ধ হওয়ার কোনো লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না। প্রতিদিনই সেখানে শত শত ফিলিস্তিনি নিহত হচ্ছে।

জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ জানিয়েছে, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে শিশুমৃত্যুর সংখ্যা ইতোমধ্যেই সহনীয় মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। ইউরোপের বিভিন্ন দেশ গাজায় অবিলম্বে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছে। একই সঙ্গে রাফায় ইসরায়েলি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সতর্ক করা হয়েছে।

টিটিএন

চাটগাঁ নিউজ/এমআর

Scroll to Top