ইতালিয়ান নাগরিকের ছিনতাইকারী ধরা

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ গত ২জানুয়ারি কোতোয়ালি থানার এসএস খালেদ রোডের কর্ণফুলী টাওয়ারের সামনে থেকে ছিনতাইয়ের শিকার হওয়া ইতালিয়ান নাগরিকের ছিনতাই হওয়া একটি মোবাইল ও নগদ ২২ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) নগরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত থাকা ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। এইসময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাও জব্দ করা হয়েছে।

এই বিষয়ে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়েদুল হক বলেন, ভুক্তভোগী ইতালিয়ান নাগরিকের অভিযোগ সাপেক্ষে ৩ জানুয়ারি একটি মামলা রুজু হয়। এরপর ঘটনাস্থলের আশপাশে ৫০টি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করা হয়। একইসঙ্গে নগরের ১৬টি থানার অন্তত ১০০টি অটোরিকশা গ্যারেজে ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত অটোরিকশাটির খোঁজ করা হয়। একপর্যায়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরের চকবাজার থানা এলাকা থেকে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত অটোরিকশা এবং অভিযুক্ত রুবেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর তার দেওয়া তথ্যে বাকি আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) ইতালিয়ান নাগরিক জ্যামা ক্যাপরা (৫৮) কোতোয়ালি থানার এসএস খালেদ রোডের কর্ণফুলী টাওয়ারের সামনে ছিনতাইয়ের শিকার হন। ঘটনার দিন তিনি জেলা শিল্পকলা অ্যাকাডেমিতে একটি অনুষ্ঠান শেষে পায়ে হেঁটে জামালখান মোড়ের দিকে যাচ্ছিলেন। অভিযুক্তরা একটি অটোরিকশা করে এসে ভুক্তভোগীর সঙ্গে থাকা ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে যায়। যেটিতে ভুক্তভোগীর ইতালিয়ান ব্যাংকের দুটি ক্রেডিট কার্ড, নগদ ৩০ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ছিল।

এই ঘটনায় গ্রেফতারকৃত অভিযুক্তরা হলেন, ফটিকছড়ি উপজেলার হারবাল ছড়ি এলাকার নুর মিয়ার ছেলে মো. রুবেল(২৯), মিরসরাই উপজেলার এরশাদ উল্লাহর ছেলে নুর উদ্দিন ওরফে রিয়াজ(৩২), নোয়াখালীর কবিরহাট থানার শেখ আহম্মদের ছেলে মো. মুমিন(৫২) ও খাগড়াছড়ি মানিকছড়ি এলাকার জিয়াউর রহমানের ছেলে আরাফাত মিয়া(২১)।

চাটগাঁ নিউজ/এসবিএন

Scroll to Top