অলরাউন্ডার সাকিবের চমকে ঢাকাকে হারাল রংপুর

শেয়ার করুন

চাটগাঁ নিউজ ডেস্কঃ আসরের শুরু থেকেই রান খরায় ভুগছিলেন সাকিব আল হাসান। অবশেষে তার ব্যাটে রান এসেছে। হেসেছে রংপুর রাইডার্সও। ব্যাটিংয়ে ২০ বলে ৩৪ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলার পর বল হাতে ১৬ রানে ৩ উইকেট শিকার করেছেন সাকিব। তার অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে দুর্দান্ত ঢাকার বিপক্ষে ৬০ রানের বড় জয় পেয়েছে রংপুর।

মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিপিএলের ম্যাচে দুর্দান্ত ঢাকাকে ৬০ রানে হারিয়েছে রংপুর রাইডার্স। শুরুতে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৭৫ রান করে রংপুর। রান তাড়ায় নেমে ১১৫ রানের বেশি করতে পারেনি ঢাকা। সাত ম্যাচের পাঁচটিতে জিতে ১০ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে রয়েছে রংপুর। ৬ ম্যাচে কেবল এক জয় নিয়ে সবার শেষে ঢাকা।

টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে এদিন দারুণ শুরু পায় রংপুর রাইডার্স। পাওয়ার প্লের ছয় ওভারেই তারা তোলে ৫০ রান। রনি তালুকদারের সঙ্গে বাবর আজমের উদ্বোধনে জুটিটি ভাঙে অষ্টম ওভারে এসে। ৪ চার ও ১ ছক্কায় ২৪ বলে ৩৯ রান করে সাজঘরে ফেরত যান রনি, আরাফাত সানির বলে তিনি এলবিডব্লিউ হওয়ার পর ভাঙে ৬৭ রানের জুটি।

রান তাড়ায় নেমে প্রথম ওভারে কেবল দুই রান পায় ঢাকা। পরের ওভারেই তারা হারিয়ে ফেলে অভিষিক্ত ওপেনার সাব্বির হোসেনের উইকেট। ৫ বলে ১ রান করা এই ব্যাটারের দুর্দান্ত ক্যাচ নেন শামীম হোসেন। মাহেদী হাসানের বলে স্লগ সুইপ করলে বাউন্ডারির কাছে ক্যাচ নেন শামীম। পরে তিনি বাউন্ডারির বাইরে গেলেও বল ভেতরে রাখেন।

রংপুরের হয়ে দারুণ বল করেন সাকিব আল হাসান। ৪ ওভারে স্রেফ ১৬ রান খরচায় তিনি নেন ৩ উইকেট। দুটি করে উইকেট শিকার করেন মাহেদি হাসান, সালমান ইরশাদ ও হাসান মাহমুদ।

উইকেট হারানোর ওই শুরুর পর কখনোই ম্যাচে ফিরতে পারেনি ঢাকা। হাসান মাহমুদ, সালমান ইরশাদ, মাহেদী হাসানের তোপের মুখে নাঈম শেখ ছাড়া আর কোনো টপ-অর্ডার ব্যাটারই প্রতিরোধ গড়তে পারেননি। ৩ চার ও সমান ছক্কায় ৩১ বলে ৪৪ রান করে আউট হন নাঈম।

এরপর অষ্টম উইকেটে গিয়ে ছোট একটা ‍জুটি গড়েছিলেন তাসকিন আহমেদ ও ইরফান শুক্কুর। ১৩ বলে ২৭ রানের ওই জুটি ভাঙেন সাকিব আল হাসান। তার বলে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ২ ছক্কায় ৮ বলে ১৫ রান করা তাসকিন। শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়া ইরফান ২৫ বলে ২১ রান করে রানআউট হন।

চাটগাঁ নিউজ/এসবিএন

Scroll to Top